অদল বদল প্রশ্ন উত্তর | Adal Badal Class 10 Question Answer | WBBSE Class 10 Bengali

মাধ্যমিকে প্রতিটি অধ্যায়ের প্রস্তুতি নিশ্চিত করার সেরা উপায় ↓

WBP-CT-Banner_offer
Adal-Badal-question-answer
শ্রেণি – দশম | বিভাগ – বাংলা | অধ্যায় – অদল বদল (Adal Badal)

দশম শ্রেণির বাংলা বিভাগ থেকে পান্নালাল প্যাটেল রচিত অদল বদল ছোটগল্প থেকে সম্পূর্ণ প্রশ্ন উত্তর আলোচনা।

সঠিক উত্তর নির্বাচন করো (MCQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান ১]

১। পান্নালাল প্যাটেল কোন্‌ ভাষায় প্রসিদ্ধ লেখক ছিলেন? (ক) মারাঠি ভাষার (খ) গুজরাটি ভাষার (গ) তামিল ভাষার (ঘ) বাংলা ভাষার
উত্তর- পান্নালাল প্যাটেল (খ) গুজরাটি ভাষায় প্রসিদ্ধ লেখক ছিলেন।

২। ‘অদল বদল’ গল্পের লেখক পান্নালাল প্যাটেল হলেন – (ক) গুজরাটি (খ) পাঞ্জাবি (গ) মারাঠি (ঘ) অসমিয়া
উত্তর- ‘অদল বদল’ গল্পের লেখক পান্নালাল প্যাটেল হলেন -(ক) গুজরাটি।

৩। ‘অদল বদল’ গল্পটি তরজমা করেছেন – (ক) অর্ঘ্যকুসুম দত্তগুপ্ত (খ) সত্যনারায়ণ চক্রবর্তী (গ) নবারুণ ভট্টাচার্য (ঘ) পূর্ণেন্দু প্ত্রী
উত্তর- ‘অদল বদল’ গল্পটি তরজমা করেছেন – (ক) অর্ঘ্যকুসুম দত্তগুপ্ত।
৪। ‘অদল বদল’ গল্পটি যে ভাষা থেকে অনুবাদ করা – (ক) পাঞ্জাবি (খ) গুজরাটি (গ) মারাঠি (ঘ) সংস্কৃত
উত্তর- ‘অদল বদল’ গল্পটি যে ভাষা থেকে অনুবাদ করা – (খ) গুজরাটি।

৫। হোলির দিন দলের ছেলেরা অমৃত আর ইসাবকে একরকম দেখে পোশাকে দেখে কী করতে বলেছিল? (ক) ছবি আঁকতে (খ) হোলি খেলতে (গ) কুস্তি লড়তে (ঘ) ফুটবল খেলতে
উত্তর- হোলির দিন দলের ছেলেরা অমৃত আর ইসাবকে একরকম দেখে পোশাকে দেখে (গ) কুস্তি লড়তে বলেছিল।

৬। অমৃতের পরিবারের সদস্য সংখ্যা – (ক) ৩ (খ) ৪ (গ) ৫ (ঘ) ৬
উত্তর- অমৃতের পরিবারের সদস্য সংখ্যা (ঘ) ৬।

৭। অমৃতকে ওর বাবা কোথা থেকে খুঁজে এনেছিল – (ক) নিমগাছের নীচ থেকে (খ) খেলার মাঠ থেকে (গ) গোয়াল ঘর থেকে (ঘ) গলি থেকে
উত্তর- অমৃতকে ওর বাবা (গ) গোয়াল ঘর থেকে খুঁজে এনেছিল।

৮। “ইসাবের মেজাজ চড়ে গেল।” – ‘চড়ে গেল’ কথাটির অর্থ – (ক) নরম হল (খ) গরম হল (গ) রেগে গেল (ঘ) ঠান্ডা হল
উত্তর- “ইসাবের মেজাজ চড়ে গেল।” – ‘চড়ে গেল’ কথাটির অর্থ – (খ) গরম হল।

৯। “ও মরিয়া হয়ে বলল” – ‘ও’ হল (ক) ইসাব (খ) কালিয়া (গ) অমৃত (ঘ) হাসান
উত্তর- “ও মরিয়া হয়ে বলল” – ‘ও’ হল (গ) অমৃত।

১০। “আমাকে বেধে রাখো!” – বক্তা হল – (ক) ইসাব (খ) অমৃত (গ) কালিয়া (ঘ) হাসান
উত্তর- “আমাকে বেধে রাখো!” – বক্তা হল – (খ) অমৃত ।


অদল বদল গল্পের কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন উত্তর দেখে নাও এই ভিডিও থেকে↓


১১। “মেজাজ চড়ে গেল।” – কার? (ক) ইসাবের (খ) অমৃতের (গ) কালিয়ার (ঘ) হাসানের
উত্তর- “মেজাজ চড়ে গেল।” – (ক) ইসাবের।

১২। অমৃতের মা ঝামেলা থেকে বাঁচার জন্য – (ক) নতুন জামা কিনে দিয়েছিল (খ) জামা কেনার কথা বাবাকে বলতে বলেছিল (গ) বাবাকে দিয়ে অমৃতকে মার খাইয়েছিল (ঘ) ইসাবের জামাটা ধার চেয়েছিল
উত্তর- অমৃতের মা ঝামেলা থেকে বাঁচার জন্য – (খ) জামা কেনার কথা বাবাকে বলতে বলেছিল।

১৩। ইসাবের জামার পকেটের কত পরিমাণ কাপড় ছিঁড়ে গিয়েছিল? (ক) আট ইঞ্চি (খ) পাঁচ সেমি (গ) একগজ (ঘ) ছ-ইঞ্চি
উত্তর- ইসাবের জামার পকেটের (ঘ) ছ-ইঞ্চি পরিমাণ কাপড় ছিঁড়ে গিয়েছিল।

১৪। অমৃতের মতো ছেলে পেলে ইসাবের বাবা কতজনকে পালন করাতে রাজি ছিলেন? (ক) এগারো জনকে (খ) সতেরো জনকে (গ) একুশ জনকে (ঘ) একত্রিশ জনকে
উত্তর- অমৃতের মতো ছেলে পেলে ইসাবের বাবা (গ) একুশ জনকে পালন করাতে রাজি ছিলেন।

১৫। অমৃতের বয়স – (ক) এগারো বছর (খ) দশ বছর (গ) বারো বছর (ঘ) পনেরো বছর
উত্তর- অমৃতের বয়স -(খ) দশ বছর।


আরো পড়ো → আয়নীয় বন্ধন ও সমযোজী বন্ধন অধ্যায়ের প্রশ্ন – উত্তর

অতি সংক্ষিপ্ত উত্তরধর্মী প্রশ্ন (VSAQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান ১]

১। “বলতে গেলে ছেলে দুটোর সবই একরকম, তফাত শুধু এই যে” – তফাতটা কী?
উত্তর- অমৃত ও ইসাবের পরিবারের সবই একরকম হলেও তফাত এখানেই যে অমৃতের বাবা-মা আর তিন ভাই আছে কিন্তু ইসাবের বাবা ছাড়া আর কেউ নেই।

২। “অমৃত এতেও পিছপা হতে রাজি নয়।” – ‘এতেও’ বলতে কোন ঘটনাকে নির্দেশ করেছে?
উত্তর- নতুন জামা দেওয়ার আগে ইসাবের বাবা তাকে খুব মেরেছিলেন অমৃতও সেরকম মার খেতে পারে, মায়ের এই প্রশ্নে অমৃত ভয় পায়নি, পিছপা হয়নি।

৩। “অমৃত ফতোয়া জারি করে দিল”, – অমৃত কী ‘ফতোয়া’ জারি করেছিল?
উত্তর- অমৃতের ফতোয়াটি ছিল – ঠিক ইসাবের মতো জামা না-পেলে অমৃত স্কুলে যাবে না।

৪। “এসো, আমরা কুস্তি লড়ি।” – কে, কাকে বলেছিল?
উত্তর- ধুলো ছোড়াছুড়ি করে খেলা গাঁয়ের ছেলের দলের মধ্য থেকে একজন এসে হাত দিয়ে অমৃতের গলা জড়িয়ে ধরে তাকে ওই কথা বলেছিল।

৫। “ছেলের দল আনন্দে চেঁচিয়ে উঠল,” – আনন্দের কারণ কী ছিল?
উত্তর- কুস্তি লড়ার আহ্বান জানিয়ে কালিয়া অমৃতকে ছুঁড়ে মাটিতে ফেলে দিয়েছিল। এই দৃশ্য দেখে ছেলের দল আনন্দে চেঁচিয়ে উঠেছিল।

৬। ‘অদল বদল’ গল্পটি কোন সময় ও দিনের কথা দিয়ে শুরু হয়েছে?
উত্তর- ‘অদল বদল’ গল্পটি হোলির দিনের পড়ন্ত বিকেলের কথা দিয়ে শুরু হয়েছে।

৭। ‘অদল বদল’ গল্পটি কে বাংলায় তরজমা করেছেন?
উত্তর- ‘অদল বদল’ গল্পটি বাংলায় তরজমা করেছেন অর্ঘ্যকুসুম দত্তগুপ্ত।

৮। “কিছুটা যেতেই অমৃতের নজরে এল” – অমৃতের কী নজরে এল?
উত্তর- কিছুটা যেতেই অমৃতের নজরে এল যে ইসাবের জামার পকেট এবং ছ-ইঞ্চি কাপড় ছিঁড়ে গেছে।

৯। ইসাবের জামা ছিঁড়ে গিয়েছিল কেন?
উত্তর- অমৃতের হেনস্থার প্রতিবাদ করতে গিয়ে ইসাব কালিয়ার সঙ্গে কুস্তি লড়েছিল, তার ফলে জামা ছিঁড়ে গিয়েছিল।

১০। “ওরা ভয়ে কাঠ হয়ে গেল।” – ওরা কী কারণে ভয়ে কাঠ হয়ে গিয়েছিল?
উত্তর- কালিয়ার সঙ্গে কুস্তি লড়তে গিয়ে ইসাবের নতুন জামার পকেট এবং ছ-ইঞ্চি পরিমাণ কাপড় ছিঁড়ে গিয়েছিল। ইসাবের বাবা দেখতে পেলে কী করবেন সেই ভয়ে অমৃত ও ইসাব কাঠ হয়ে গিয়েছিল।

১১। “তিনি ওদের ডাকলেন,” – তিনি কে এবং কী করেছিলেন?
উত্তর- তিনি হলেন ইসাবের বাবা হাসান। তিনি ইসাব ও অমৃতকে তাঁর কাছে এসে বস্তে বলেছিলেন এবং বন্ধুদের কাছ থেকে কেন পালিয়ে আসছে তা জানতে চেয়েছিলেন। পরে তিনি অমৃতকে জড়িয়ে ধরে তার উদারতার প্রশংসা করেছিলেন।

১২। “সজল চোখে পাঠান বললেন, কী খাঁটি কথা!” – এখানে কোন খাঁটি কথার প্রতি ইঙ্গিত করা হয়েছে?
উত্তর- জামা বদল করার জন্য অমৃতের বাবা তাঁকে মারতে পারে। ইসাবের ওই কথার জবাবে অমৃত ভয় না পেয়ে বলেছিল যে, তার মা তাঁকে বাঁচাবে। অমৃতের বন্ধুর জন্য এই আত্মত্যাগ ভাবনাকেই পাঠান ‘খাঁটি কথা’ বলেছেন।

১৩। ‘অদল-বদলের গল্প’ গ্রাম প্রধানের কানে গেলে তিনি কী ঘোষণা করেছিলেন? (মাধ্যমিক 19)
উত্তর- অদল বদলের গল্প গ্রাম প্রধানের কানে গেলে তিনি ঘোষণা করেছিলেন, সেদিন থেকে তাঁরা অমৃতকে অদল এবং ইসাবকে বদল বলে ডাকবেন।


২০২৩ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ আপডেট

Buy Now – মাধ্যমিক ২০২৩ চ্যাপ্টার টেস্ট ই-বুক সিরিজ

ব্যাখ্যাভিত্তিক সংক্ষিপ্ত উত্তর ভিত্তিক প্রশ্ন (SAQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান ৩]

১। ‘ছেলেদুটোর সবই একরকম, তফাত শুধু এই যে,’ – ছেলে দুটি কে, কে? তাদের মধ্যে তফাত কোথায়? [১+২] (মাধ্যমিক 20)
উত্তর – আলোচ্য উক্তিটি পান্নালাল প্যাটেল রচিত ছোটগল্প ‘অদল – বদল’ থেকে নেওয়া হয়েছে, এখানে ছেলেদুটো বলতে অমৃত ও ইসাব নামের দুই হরিহর আত্মা বন্ধুর কথা বলা হয়েছে।

গ্রামের দুটি ছোট ছেলে অমৃত ও ইসাবের মধ্যে বন্ধুত্ব প্রগাঢ়। তারা একই স্কুলে, একই ক্লাসে পড়ে। রাস্তার মোড়ে তাদের সমনা – সামনি তাদের বাড়ি, তাদের দুজনের বাবাই পেশায় চাষি, তাদের জমির পরিমাণও প্রায় এক, কিন্তু তাদের মধ্যে তফাত কেবল একটি জায়গায়; ইসাবের পরিবারে কেবলমাত্র তার বাবা আছেন, অপরদিকে অমৃতের পরিবারে মা – বাবা এবং তিন ভাই রয়েছে।


মাধ্যমিক পরীক্ষার ভীতি কাটাবার সেরা উপায় ↓


২। “ও স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিল,” – ও কে? স্কুলে যাওয়া বন্ধ করেছিল কেন? (১+২) [ABTA Test Exam]
উত্তর – আলোচ্য উক্তিটি প্যাটেল রচিত ছোটগল্প ‘অদল – বদল’ থেকে নেওয়া হয়েছে, এখানে ‘ও’ বলতে গল্পের প্রধান দুই চরিত্রের অন্যতম অমৃতের কথা বলা হয়েছে।

আমরা গল্পে জানতে পারি যে, ইসাবের জামা ছিঁড়ে যাবার কারণে এবং অনেক বায়না ও মার সহ্য করে ইসাব একটি নতুন জামা হাতে পেয়েছে।এরফলে তার হরিহর আত্মা বন্ধু অমৃত তার বাড়িতে নতুন জামা কিনে দেবার কথা বলে। কিন্তু অমৃতের মা নতুন জামা কিনে দিতে রাজী না হলে, অমৃত হাল না ছেড়ে স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দেয়। এটাই ছিল অমৃতের স্কুলে না যাওয়ার কারণ।

৩। “ইসাবের সঙ্গে কুস্তি লড়তে তো একেবারেই গররাজি।” -কে? কেন? (১+২)
উত্তর – এখানে ইসাবের বন্ধু অমৃতের কথা বলা হয়েছে।

প্যাটেল রচিত ছোটগল্প ‘অদল – বদল’ থেকে আমরা জানতে পারি যে ইসাব এবং অমৃত ঘনিষ্ঠ বন্ধু। দোলের দিন তারা, তাদের নতুন জামা পরে ঘুরতে বেড়িয়েছে। এই সময়ে তাদের কিছু বন্ধু কুস্তি লড়ার কথা বলে, প্রথমত তারা নতুন জামা পরে আছে, কুস্তি লড়তে চাইলে জামা নোংরা হয়ে বাড়িতে বকা খাবার সম্ভাবনা আছে। দ্বিতীয়ত, তারা যেহেতু খুব ভালো বন্ধু তাই তারা কোনমতেই একে অপরের সঙ্গে লড়াই করতে চায় না। এই কারণেই, অমৃত ইসাবের সঙ্গে লড়তে রাজী ছিল না।

৪। “হঠাৎ অমৃতের মাথায় একটা বুদ্ধি খেলে গেল”, – অমৃতের মাথায় কী বুদ্ধি খেলে গিয়েছিল?
উত্তর – আলোচ্য উক্তিটি পান্নালাল প্যাটেল রচিত ছোটগল্প ‘অদল বদল’ থেকে গৃহীত হয়েছে। গল্পের প্রধান দুই চরিত্র অমৃত এবং ইসাবের মধ্যে খুব ভালো বন্ধুত্ব। দোলের দিন তারা দুজন একই ধরণের দুটি জামা পরে বেড়াতে বেরিয়েছিল। কিন্তু পথে অন্য ছেলেদের সাথে মারামারির ফলে ইসাবের জামার পকেট ছিঁড়ে যায়। ইসাবের বাবা ছিলেন রাগি প্রকৃতির, ইসাবের নতুন জামা অকারণে ছিঁড়ে গেছে জানতে পারলে তিনি ইসাবকে মারবেন এই আশঙ্কায় ইসাব ভয় পায়। এই সময়ে অমৃতের মাথায় একটি বুদ্ধি আসে, যেহেতু তাদের দুজনের জামা একই রকমের তাই অমৃত নিজের জামা ইসাবের সাথে পরিবর্তন করে নিতে চায়, যাতে ইসাবের বাবা জামা ছেঁড়ার কথা বুঝতে না পারেন।

৫। “কিন্তু আমাকে বাঁচানোর জন্য তো আমার মা আছে।” – কার উক্তি? উক্তিটির মধ্য দিয়ে তার চরিত্রের কোন দিকটি প্রকাশিত হয়েছে? (১+২)
উত্তর – আলোচ্য উক্তিটি পান্নালাল প্যাটেল রচিত ছোটগল্প অদল – বদল থেকে নেওয়া হয়েছে। গল্পে এই উক্তিটি করেছে অমৃত।

গল্পে আমরা জানতে পারি, দোলের দিন মারামারির ফলে ইসাবের জামার পকেট ছিঁড়ে যায়, বাড়িতে বাবার হাতের মারের থেকে বাঁচানোর জন্য অমৃত নিজের জামা ইসাবের সাথে বদল করতে চায়। ইসাব এর পরিবর্তে বলে যে, ছেঁড়া জামা দেখলে অমৃতকেও তার বাড়িতে রেয়াত করা হবে না। এই পরিপ্রেক্ষিতেই অমৃত ইসাবকে বলে যে তার মা আছেন, ফলে বাড়িতে ইসাবের মতো বকুনি খেতে হবে না। এই কথার মধ্য দিয়ে অমৃতের বন্ধুবৎসলতাএবং সহমর্মীতার দিকটি প্রকাশিত হয়েছে।

৬। “উনি দশ বছরের অমৃতকে জড়িয়ে ধরলেন” – ‘উনি’ কে? কেন অমৃতকে উনি জড়িয়ে ধরলেন? (১+২) [মাধ্যমিক 18]

উত্তর – আলোচ্য উক্তিটি পান্নালাল প্যাটেল রচিত ছোটগল্প অদল – বদল থেকে নেওয়া হয়েছে। এখানে উনি বলতে ইসাবের বাবার কথা বলা হয়েছে। মারামারির ফলে ইসাবের জামা ছিঁড়ে গেলে, ইসাব যাতে বাড়িতে বাবার কাছে মার না খায়, তাই অমৃত ও ইসাব জামা অদল বদল করে। আড়াল থেকে অমৃতের এই ঘটনা ইসাবের বাবা লক্ষ্য করে। অমৃতের উদার ব্যবহার এবং বন্ধুপ্রীতি তার কঠিন মনকে আদ্র করে দেয় এবং তিনি আনন্দে অমৃতকে জড়িয়ে ধরেন।

আরো পড়ো → বংশগতি অধ্যায়ের প্রশ্ন উত্তর আলোচনা

WBPorashona.com-এর পোস্ট আপডেট নিয়মিত পাবার জন্য –


আমাদের কাজ থেকে উপকৃত হলে এই লেখাটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করার অনুরোধ রইল।

WBP-YT-Banner