অস্থিত পৃথিবী – প্রশ্ন উত্তর | Osthit Prithibi – Question Answer

নিয়মিত প্রশ্ন উত্তরের আপডেট পাও নিজের মোবাইলে 👇

wb porashona.com whatsapp channel
osthit-prithibi-question-answer
শ্রেণি – অষ্টম | বিভাগ – ভূগোল | অধ্যায় – অস্থিত পৃথিবী | Osthit Prithibi (Chapter-2)

এই পর্বে রইল অষ্টম শ্রেণির ভূগোল বিভাগের দ্বিতীয় অধ্যায় – অস্থিত পৃথিবী – থেকে সম্পূর্ণ প্রশ্ন উত্তর আলোচনা।

সঠিক উত্তর নির্বাচন কর (MCQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান ১]

1। ভূমিকম্প তরঙ্গগুলি মধ্যে
(ক) P (খ) S (গ) L তরঙ্গ (ঘ) M তরঙ্গ কেন্দ্রমণ্ডলের ভিতরে (অন্তঃকেন্দ্রমণ্ডল) প্রবেশ করতে পারে।

উত্তর- ভূমিকম্প তরঙ্গগুলি মধ্যে (খ) S তরঙ্গ কেন্দ্রমণ্ডলের ভিতরে (অন্তঃকেন্দ্রমণ্ডল) প্রবেশ করতে পারে।

2। ভূমিকম্পে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় –
(ক) কেন্দ্র (খ) উপকেন্দ্র (গ) প্রতিপাদ অঞ্চল (ঘ) কোনটিই নয়।

উত্তর- ভূমিকম্পে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় – (খ) উপকেন্দ্র।

3। যে সীমানা বরাবর দুটি পাত পরস্পর থেকে দূরে সরে যায়, তাকে বলা হয় –
(ক) অভিসারী (খ) প্রতিসারী/ অপসারী (গ) নিরপেক্ষ পাতসীমানা (ঘ) কোনটিই নয়।

উত্তর- যে সীমানা বরাবর দুটি পাত পরস্পর থেকে দূরে সরে যায়, তাকে বলা হয় (খ) প্রতিসারী/ অপসারী।

4। সর্বাপেক্ষা ভূমিকম্প প্রবণ দেশ হলো –
(ক) চীন (খ) জাপান (গ) ভারত (ঘ) ভূটান

উত্তর- সর্বাপেক্ষা ভূমিকম্প প্রবণ দেশ হলো – (খ) জাপান।

5। মৌনালোয়া হল একটি –
(ক) মৃত আগ্নেয়গিরি (খ) জীবন্ত আগ্নেয়গিরি (গ) সুপ্ত আগ্নেয়গিরি (ঘ) খনিজ শিলা

উত্তর- মৌনালোয়া হল একটি (খ) জীবন্ত আগ্নেয়গিরি।

6। পৃথিবীর অধিকাংশ আগ্নেয়গিরি ________
(ক) প্রশান্ত মহাসাগরে (খ) আটলান্টিক মহাসাগরে (গ) ভারত মহাসাগরে (ঘ) কুমেরু সাগর অবস্থিত।

উত্তর- পৃথিবীর অধিকাংশ আগ্নেয়গিরি (ক) প্রশান্ত মহাসাগরে অবস্থিত।

7। মধ্য আটলান্টিক শৈলশিরা উৎপত্তি হয় –
(ক) ধবংসাত্মক (খ) গঠনাত্মক (গ) নিরপেক্ষ পাতসীমানা ববরাবর (ঘ) কোনটিই নয়।
উত্তর- মধ্য আটলান্টিক শৈলশিরা উৎপত্তি হয় (খ) গঠনাত্মক বরাবর।

8। ভূমিকম্প কেন্দ্র ভূপৃষ্ঠ থেকে –
(ক) 50-100 (খ) 100-150 (গ) 150-200 কিমি (ঘ) 200-250 কিমি গভীরে থাকে।

উত্তর- ভূমিকম্প কেন্দ্র ভূপৃষ্ঠ থেকে (ক) 50-100 কিমি গভীরে থাকে।

9। প্লেট শব্দটি প্রথম ব্যবহার করেন বিজ্ঞানী –
(ক) ওয়েগনার (খ) পিঁচো (গ) জিমোরম্যান (ঘ) উইলসন

উত্তর- প্লেট শব্দটি প্রথম ব্যবহার করেন বিজ্ঞানী (ঘ) উইলসন।

10। ভূমিকম্পের সর্বাধিক ক্ষয়ক্ষতির কারণ –
(ক) প্রাথমিক তরঙ্গ (খ) গৌণ তরঙ্গ (গ) পৃষ্ঠ তরঙ্গ

উত্তর- ভূমিকম্পের সর্বাধিক ক্ষয়ক্ষতির কারণ (গ) পৃষ্ঠ তরঙ্গ।


আরো পড়ো → বনভোজনের ব্যাপার গল্পের প্রশ্ন উত্তর আলোচনা

অতি সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন (VSAQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান ১]

1। বিদার অগ্ন্যুৎপাতের ফলে পৃথিবীর কোন মালভূমি সৃষ্টি হয়েছে?
উত্তর- বিদার অগ্ন্যুৎপাতের ফলে পৃথিবীর দাক্ষিণাত্যের মালভূমি সৃষ্টি হয়েছে।

2। পৃথিবীতে প্রথম এসে পৌঁছায় কোন তরঙ্গ?
উত্তর- পৃথিবীতে প্রথম এসে পৌঁছায় P তরঙ্গ।

3। পৃথিবীর গভীরতম খাত কোনটি?
উত্তর- পৃথিবীর গভীরতম খাত মারিয়ানা খাত।

4। ভারতের একটি সুপ্ত আগ্নেয়গিরির নাম লেখো।
উত্তর- ভারতের একটি সুপ্ত আগ্নেয়গিরির নাম নারকোণ্ডাম।

5। কোন স্কেলের সাহায্যে ভূমিকম্পের তীব্রতা মাপা হয়?
উত্তর- রিখটার স্কেলের সাহায্যে ভূমিকম্পের তীব্রতা মাপা হয়।


আরো পড়ো → আঞ্চলিক শক্তির উত্থান অধ্যায়ের প্রশ্ন উত্তর আলোচনা

বিশ্লেষণধর্মী প্রশ্ন উত্তর

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান ৩]

1। ‘প্রশান্ত মহাসাগর অগ্নিবলয়’ ভূমিকম্পপ্রবণ কেন?
উত্তর- পৃথিবীর অধিকাংশ জীবন্ত আগ্নেয়গিরি প্রশান্ত মহাসাগরকে ঘিরে রেখেছে। তাই এই অংশেই পৃথিবীর প্রায় ৭০ শতাংশ ভূমিকম্প হয়।

2। নিরপেক্ষ পাতসীমানা কাকে বলে? উদাহরণ দাও।
উত্তর- কখনো কখনো দুটি পাত সংঘর্ষে লিপ্ত না হয়ে পাশাপাশি সমান্তরালভাবে অবস্থান করে, এই ক্ষেত্রে নতুন কোনো পাত সৃষ্টি বা ধ্বংস হয়না। একে নিরপেক্ষ পাতসীমানা বলে। যেমন – ক্যালিফোর্নিয়ার উত্তর দক্ষিণে বিস্তৃত সান আন্দ্রিজ চ্যুতি এইরকম সীমানার উদাহরণ।

3। মৃত আগ্নেয়গিরি কাকে বলে?
উত্তর- যে আগ্নেয়গিরিগুলিতে সুদূর অতীতে অগ্ন্যুতগম হলেও বর্তমানে বা ভবিষ্যতে অগ্ন্যুৎপাতের কোনো সম্ভাবনা নেই, সেই সব আগ্নেয়গিরি মৃত আগ্নেয়গিরি হিসাবে পরিচিত। যেমন- মায়ানমারের পোপো।

4। অপসারী পাত সীমানাকে গঠনকারী পাত সীমানা বলা হয় কেন?
উত্তর- অপসারী পাত সীমানায় সমুদ্রের তলদেশের দুটি পাত পরস্পর পরস্পরের থেকে দূরে সরে যায়, ফলে ভূ-অভ্যন্তরের উত্তপ্ত, গলিত ম্যাগমা সেই ফাঁকা স্থান দিয়ে বাইরে বেরিয়ে আসে। এই ম্যাগমা ধীরে ধীরে শীতল ও কঠিন হয়ে সেখানে নতুন ভূত্বক গঠন করে। তাই অপসারী পাত সীমানাকে গঠনকারী পাত সীমানা বলা হয়।

দীর্ঘ উত্তরভিত্তিক প্রশ্ন (LA)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান ৫]

1। ভূমিকম্পের কারণগুলি লেখো।
উত্তর- পৃথিবীর অভ্যন্তরে নিহিত শক্তি হঠাৎ মুক্ত হলে পৃথিবীর উপরিতল বা ভূত্বক কম্পিত হয়, একে ভূমিকম্প বলে। এর কারণগুলি হল-

প্রাকৃতিক কারণ

পাত সঞ্চালন
এই পৃথিবীর ভূত্বক কতগুলি কঠিন, শক্ত খণ্ডে বিভক্ত এইগুলি পাত নামে পরিচিত। এই পাতগুলি সবসময় সঞ্চালিত হচ্ছে। এরফলে পাতগুলো কখনো একে অপরের সাথে সংঘর্ষে লিপ্ত হয় বা কখনো একে অন্যের থেকে দূরে সরে যায় ফলে ভূঅভ্যন্তরে নিহিত শক্তি বেরিয়ে এসে ভূকম্প ঘটায়।
অগ্ন্যুৎপাত
আগ্নেয়গিরি থেকে লাভা নির্গত হবার সময়ে ভূঅভ্যন্তরের ব্যাপক চাপ হ্রাস হয়। ফলে ভূমিকম্প অনুভুত হয়।

মনুষ্য সৃষ্ট কারণ

পাহাড়ে রাস্তা নির্মাণ
প্রযুক্তির উন্নতির সাথে সাথেই আমরা প্রকৃতিকে নিজেদের ইচ্ছা অনুযায়ী বদলানোর প্রচেষ্টা করেছি। যেমন ডিনামাইট বিস্ফোরণের মাধ্যমে পাহাড় কেটে রাস্তা নির্মাণ। এরফলে রাস্তা নির্মাণের পাশাপাশি ভূমিকম্প অনুভূত হয়।

বোমা বিস্ফোরণ
বিভিন্ন শক্তিশালী মারণ বোমা (যেমন- হাইড্রোজেন বোমা, পরমাণু বোমা ইত্যাদি) বিস্ফোরণের ফলে ভূত্বক কেঁপে ওঠে।

আরো পড়ো → পৃথিবীর অন্দরমহল অধ্যায়ের প্রশ্ন উত্তর আলোচনা

WBPorashona.com-এর পোস্ট আপডেট নিয়মিত পাবার জন্য –


আমাদের কাজ থেকে উপকৃত হলে এই লেখাটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করার অনুরোধ রইল।

পড়া মনে রাখার সেরা উপায় 👇

WBP-to-the-point-banner-v1