ধাতুবিদ্যা – প্রশ্ন উত্তর | Metallurgy Question Answer WBBSE

মাধ্যমিকে প্রতিটি অধ্যায়ের প্রস্তুতি নিশ্চিত করার সেরা উপায় ↓

WBP-CT-Banner_offer
dhatubidya
শ্রেণি – দশম | বিভাগ – ভৌতবিজ্ঞান| অধ্যায় – ধাতুবিদ্যা – প্রশ্ন উত্তর – Metallurgy Question Answer | Metallurgy (Chapter 3)

এই পর্বে রইল দশম শ্রেণির ভৌতবিজ্ঞান বিভাগের অষ্টম অধ্যায় – ধাতুবিদ্যা থেকে কয়েকটি ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন – উত্তর আলোচনা।

সঠিক উত্তর নির্বাচন করো। (MCQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান 1]

1। লোহার পেরেককে কোন্‌ দ্রবণে ডুবিয়ে রাখলে রং পরিবর্তন দেখা যাবে-
a) \(ZnSO_4\) b) \(Al_2(SO_4)_3\) c) \(FeSO_4\) d) \(CuSO_4\)

উত্তর- লোহার পেরেককে d) \(CuSO_4\) দ্রবণে ডুবিয়ে রাখলে রং পরিবর্তন দেখা যাবে।

2। জার্মান সিলভারে থাকে না-
a) Ag b) Cu c) Zn d) Ni

উত্তর- জার্মান সিলভারে থাকে না a) Ag.

3। থার্মিট পদ্ধতিতে কোন্‌টি বিকারক দ্রব্য-
a) C b) Al c) Fe d) Zn

উত্তর- থার্মিট পদ্ধতিতে বিকারক দ্রব্য হল b) Al.

4। কার্বন-বিজারণ পদ্ধতিতে প্রস্তুত করা যায়-
a) Zn b) Na c) K d) Al

উত্তর- কার্বন-বিজারণ পদ্ধতিতে প্রস্তুত করা যায় a) Zn।

5। জার্মান সিলভারে কোন্‌ মৌল সবথেকে বেশি থাকে?
a) Fe b) Cu c) Zn d) Ag

উত্তর- জার্মান সিলভারে কোন মৌল সবথেকে বেশি থাকে b) Cu.

6। গিবসাইট কোন্‌ ধাতুর আকরিক?
a) Al b) Cu c) Zn d) Fe

উত্তর – গিবসাইট কোন্‌ ধাতুর আকরিক a) Al.

7। অ্যালুমিনিয়ামের আকরিক নয়-
a) গিবসাইট b) ক্রায়োলাইট c) ম্যালাকাইট d) ফেলস্পার।

উত্তর – d) ফেলস্‌পার অ্যালুমিনিয়ামের আকরিক নয়।

8। হেমাটাইট কোন্‌ ধাতুর আকরিক?
a) তামা b) অ্যালুমিনিয়াম c) লোহা d) জিংক

উত্তর- হেমাটাইট c) লোহা ধাতুর আকরিক।

9। বিমানের কাঠামো তৈরিতে ব্যবহৃত সংকর ধাতুটি হল-
a) জার্মান সিলভার b) ব্রোঞ্জ c) ইনভার d) ডুরালুমিন

উত্তর- বিমানের কাঠামো তৈরিতে ব্যবহৃত সংকর ধাতুটি হল d) ডুরালুমিন।

10। প্রদত্ত কোন্‌ ধাতুটি পারদ সংকর তৈরি করে না-
a) Zn b) Ag c) Fe d) Na

উত্তর – c) Fe ধাতুটি পারদ সংকর তৈরি করে না।

আরো পড়ো → নাইট্রোজেন চক্র প্রশ্ন – উত্তর

একটি বাক্যে উত্তর দাও। (VSAQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান 1]

1। গ্যালভানাইজেশনে কোন্ ধাতুর প্রলেপ দেওয়া হয়?
উত্তর- গ্যালভানাইজেশনে জিংক ধাতুর প্রলেপ দেওয়া হয়।

2। ‘দার্শনিকের উল’ কাকে বলে?
উত্তর- ‘দার্শনিকের উল’ বলা হয় জিংক অক্সাইডকে।

3। আর্দ্র বাতাসে ফেলে রাখলে তামার উপর সবুজ বর্ণের যে আস্তরণটি পড়ে সেটির রাসায়নিক নাম কী?
উত্তর- আর্দ্র বাতাসে ফেলে রাখলে তামার উপর সবুজ বর্ণের যে আস্তরণটি পড়ে সেটির রাসায়নিক নাম বেসিক কপার কার্বোনেট।


মাধ্যমিক পরীক্ষার ভীতি কাটাবার সেরা উপায় ↓


4। পিতল, ব্রোঞ্জ ও কাঁসার প্রধান উপাদানটি কী?
উত্তর- পিতল, ব্রোঞ্জ ও কাঁসার প্রধান উপাদানটি কপার।

5। মরচের রাসায়নিক সংকেত কী?
উত্তর- মরচের রাসায়নিক সংকেত \(Fe_2O_3,x_3HO\).

আরো পড়ো → ভারতের স্বাভাবিক উদ্ভিদ প্রশ্ন – উত্তর

সংক্ষিপ্ত উত্তরভিত্তিক প্রশ্ন (SAQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান 2]

1। জিংক-অক্সাইড থেকে কীভাবে জিংক ধাতু পাওয়া যায়? বিক্রিয়াটি সমিত রাসায়নিক সমীকরণসহ লেখো।
উত্তর- জিংক অপেক্ষাকৃত কম সক্রিয় ধাতু, তাই জিংক ধাতু পেতে কার্বন বিজারণ পদ্ধতিটি ব্যবহার করা হয়। সাধারণ কোক ব্যবহার করা হয়।
ZnO + C = Zn + CO
এই বিক্রিয়ায় কার্বন জারিত হয়ে কার্বন মনোক্সাইড (CO) উৎপন্ন করে আবার এই CO একটি বিজারকের ভূমিকা পালন করে।

2। আকরিকের উদাহরণসহ সংজ্ঞা দাও।
উত্তর- যে সব খনিজ থেকে প্রয়োজনীয় ধাতুকে সুলভে ও সহজ উপায়ে নিষ্কাশিত করা যায় তাকে ঐ ধাতুর আকরিক বলে। যেমন- রেড হেমাটাইট হল আয়রনের আকরিক।

3। লোহার একটি ধাতু-সংকরের নাম লেখো। ওই ধাতু-সংকরের উপাদানগুলির শতকরা পরিমাণ লেখো।
উত্তর- লোহার একটি ধাতু-সংকরের নাম স্টেইনলেস স্টিল। যা প্রস্তুত হয় আয়রন (Fe-88%), ক্রোমিয়ামের (Cr-12%) মিশ্রনে।

4। ধাতু নিষ্কাশন কী?
উত্তর- কোনো ধাতুকে তার আকরিক থেকে যে পদ্ধতিতে মুক্ত করা হয় তাকে ধাতু নিষ্কাশন বলে। যেমন বক্সাইট থেকে অ্যালুমিনিয়াম নিষ্কাশন।

আরো পড়ো → Our runaway kite Question – Answer

সংক্ষিপ্ত ব্যাখামূলক উত্তরভিত্তিক প্রশ্ন (SAQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান 3]

1। একটি চকচকে লোহার ছুরিকে \(CuSO_4\) দ্রবণে ডোবালে লোহার ছুরির ওপর তামার লাল আস্তরণ পড়ে, কিন্তু \(FeSO_4\) দ্রবণে তামার ছুরি ডোবালে কোনো আস্তরণ পড়ে না। -ব্যাখ্যা করো।
উত্তরঃ তড়িৎ রাসায়নিক শ্রেণীতে বেশি সক্রিয় কোনো ধাতু অপেক্ষাকৃত কম সক্রিয় কোনো ধাতুর যৌগ বা জলীয় দ্রবণ থেকে ঐ কম সক্রিয় ধাতুটিকে প্রতিস্থাপিত করতে পারে। লোহা কপারের তুলনায় বেশি সক্রিয় হওয়ায় তা কপার সালফেটের যৌগ থেকে কপার কে প্রতিস্থাপিত ও অধঃক্ষিপ্ত করবে। তাই একটি চকচকে লোহার ছুরিকে \(CuSO_4\) দ্রবণে ডোবালে লোহার ছুরির ওপর তামার লাল আস্তরণ পড়ে। কিন্তু আয়রনকে তারই যৌগ \(FeSO_4\) ডোবালে ঐ সম্ভাবনা থাকে না।
\(Fe + CuSO_4 FeSO_4 + Cu\)

2। দস্তার পাত্রে কপার সালফেট দ্রবণ কেন রাখা যায় না ব্যাখ্যা করো। বিক্রিয়ার সমিত সমীকরণ দাও।
উত্তর- তড়িৎ রাসায়নিক শ্রেণীতে বেশি সক্রিয় কোনো ধাতু অপেক্ষাকৃত কম সক্রিয় কোনো ধাতুর যৌগ বা জলীয় দ্রবণ থেকে ঐ কম সক্রিয় ধাতুটিকে প্রতিস্থাপিত করতে পারে। জিংক কপারের তুলনায় বেশি সক্রিয় হওয়ায় তা কপার সালফেটের যৌগ থেকে কপারকে প্রতিস্থাপিত ও অধঃক্ষিপ্ত করবে। তাই দস্তার পাত্রে কপার সালফেট দ্রবণ রাখা উচিত নয়।
\(Zn + CuSO_4 = ZnSO_4 + Cu\)

3। ‘সব আকরিকই খনিজ, কিন্তু সব খনিজই আকরিক নয়’- উক্তিটি ব্যাখ্যা করো।
উত্তর- প্রকৃতিতে কোনো ধাতু, যৌগ হিসেবে অবস্থান করলে তাকে ঐ ধাতুর খনিজ বলে। কিন্তু যে সকল খনিজ থেকে স্বল্প ব্যয়ে ও সহজে অধিক পরিমাণ কোনো নির্দিষ্ট ধাতুকে নিষ্কাশন করা যায়, তাকে ঐ নির্দিষ্ট ধাতুর আকরিক বলে। যেমন – আয়রনের খনিজ রেড হেমাটাইট ও আয়রন পাইরাইটিস। কিন্তু আয়রন পাইরাইটিস থেকে সুলভে ও সহজ পদ্ধতিতে আয়রন নিষ্কাশন করা যায় না। তাই এটি আয়রনের খনিজ কিন্তু আকরিক নয়। আবার রেড হেমাটাইট থেকে সহজেই আয়রন নিষ্কাশন করা যায়, তাই এটি আয়রনের আকরিক। তাই বলা যায়, সব আকরিকই খনিজ কিন্তু সব খনিজই আকরিক নয়।


ধাতুবিদ্যা অধ্যায়ের কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন- উত্তর↓


4। মরচে পড়ার দুটি আর্থিক ক্ষতি উল্লেখ করো। কীভাবে মরচে পড়া নিবারণ করা যায় দুটি উপায় লেখো।
উত্তর- মরচে পড়লে ধীরে ধীরে লোহা ক্ষয়প্রাপ্ত হতে থাকে তাই মরচে পড়লে আর্থিক ক্ষতির সম্ভাবনা থেকে যায়।
i. লোহার চাবি তালায় অনেক সময় মরচে ধরে গিয়ে ঐ চাবি তালা বিকল হয়ে যায় ফলে তা আর ব্যবহার করা যায়না।
ii. বহু পুরনো বাড়িতেই বড় বড় লোহার দরজা থাকে, দীর্ঘদিন ধরে উন্মুক্ত অবস্থায় থাকার ফলে মরচে ধরে তা সম্পূর্ণভাবে নষ্ট হয়ে যায় ফলে গৃহকর্তাকে পুনরায় দরজা নির্মাণ করতে হয়।
মরচে পড়া নিবারণ করার দুটি উপায়-
i. লোহার দ্রব্য তাই তেল রঙ দ্বারা নিয়মিত রঙ করা প্রয়োজন।
ii. জিংকের প্রলেপ বা গ্যালভানাইজেশন দ্বারা মরচে পড়া থেকে লোহাকে রক্ষা করা যায়।

5। কপার সালফেটের \((CuSO_4)\) জলীয় দ্রবণে জিংকের একটি টুকরো যোগ করলে কী হবে? ইলেকট্রনীয় তত্ত্বের সাহায্যে দেখাও যে এটি একটি জারণ-বিজারণ বিক্রিয়া।
উত্তর- তড়িৎ রাসায়নিক শ্রেণিতে জিঙ্ক কপারের আগে অবস্থান করে, সেই জন্যে কপার সালফেটের \((CuSO_4)\) যৌগ থেকে খুব সহজেই কপারকে জিঙ্ক প্রতিস্থাপিত করে জিঙ্ক সালফেট \((ZnSO_4)\) যৌগ গঠন করতে পারে।
নিজে বিক্রিয়া দেখানো হল-
\(Zn^0 + Cu^2 + SO_4 = Cu^0 + Zn^2 + SO_4^{2-}\)
এই ক্ষেত্রে জিঙ্ক বিক্রিয়ার পূর্বে মৌল হিসাবে ছিল, বিক্রিয়ার পরে দুটি ইলেকট্রন ত্যাগ করে ধনাত্মক আয়নে পরিণত হয়েছে। এই ক্ষেত্রে জারণ সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে \(Zn^0 \rightarrow Zn^{2+}\) সুতরাং জারণ ঘটেছে। আবার অপর দিকে কপার প্রথমে ধনাত্মক আয়ন হিসাবে ছিল বিক্রিয়ার পর তা দুটি ইলেকট্রন গ্রহণ করে মৌলে পরিণত হয়েছে অর্থাৎ জারণ সংখ্যা হ্রাস পেয়েছে \(Cu^{2+} \rightarrow Cu^0\) সুতরাং বিজারণ ঘটেছে। তাই বলা এটি একটি জারণ বিজারণ বিক্রিয়া।

আরো পড়ো → পরীক্ষাগার ও রাসায়নিক শিল্পে অজৈব রসায়ন – প্রশ্ন উত্তর

WBPorashona.com-এর পোস্ট আপডেট নিয়মিত পাবার জন্য –


আমাদের কাজ থেকে উপকৃত হলে এই লেখাটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করার অনুরোধ রইল।

WBP-YT-Banner