সিন্ধুতীরে প্রশ্ন উত্তর | Sindhutire Class 10 Question Answer | WBBSE Class 10 Bengali

মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ সুখবর ↓

WBP-CT-Banner_offer
Shindhutire-question-answer
শ্রেণি – দশম | বিভাগ – বাংলা | অধ্যায় – সিন্ধুতীরে (Sindhutire)

দশম শ্রেণির বাংলা বিভাগ থেকে সৈয়দ আলাওল রচিত সিন্ধুতীরে কাব্যাংশ থেকে সম্পূর্ণ প্রশ্ন উত্তর আলোচনা।

সঠিক উত্তর নির্বাচন করো (MCQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান ১]

১। ‘সিন্ধুতীরে’ কাব্যাংশটি কোন কাব্যগ্রন্থের অন্তর্গত? (ক) সতীময়না ও লোরচন্দ্রাণী (খ) তোহফা (গ) পদ্মাবতী (ঘ) সেকেন্দারনামা
উত্তর- ‘সিন্ধুতীরে’ কাব্যাংশটি (গ) পদ্মাবতী কাব্যগ্রন্থের অন্তর্গত। [মাধ্যমিক ১৭]

২। ‘কন্যারে ফেলিল যথা’ – কন্যার নাম কী? (ক) ময়না (খ) পদ্মাবতী (গ) চন্দ্রবতী (ঘ) চন্দ্রানী
উত্তর- ‘কন্যারে ফেলিল যথা’ – কন্যার নাম (খ) পদ্মাবতী।

৩। ‘সমুদ্রনৃপতি সুতা’ কে? (ক) লক্ষ্মী (খ) পদ্মা (গ) উমা (ঘ) বারুণী
উত্তর- ‘সমুদ্রনৃপতি সুতা’ হল (খ) পদ্মা। [মাধ্যমিক ১৮]

৪। সিন্ধুতীরের উপরের পর্বত ছিল – (ক) ঘরবাড়িতে পূর্ণ (খ) ফল-ফুলে সজ্জিত (গ) পশুপাখিতে ভরা (ঘ) জল-মানুষে পূর্ণ
উত্তর- সিন্ধুতীরের উপরের পর্বত ছিল (খ) ফল-ফুলে সজ্জিত।

৫। “তাঁর পাশে রচিল উদ্যান।।” – কার পাশে? (ক) সমুদ্রের (খ) দিব্যপুরীর (গ) পর্বতের (ঘ) টঙ্গির
উত্তর- “তাঁর পাশে রচিল উদ্যান।।” – (গ) পর্বতের পাশে।

৬। “দেখি দিব্যস্থান” -কোথায় দিব্যস্থান দেখতে পেয়েছিলেন? (ক) সমুদ্র মাঝারে (খ) পর্বতের ভিতরে (গ) জলের মাঝারে (ঘ) সিন্ধুতীরে
উত্তর- “দেখি দিব্যস্থান” -(ঘ) সিন্ধুতীরে দিব্যস্থান দেখতে পেয়েছিলেন।

৭। ‘মাঞ্জস’ শব্দের অর্থ – (ক) ভেলা (খ) জাহাজ (গ) বজরা (ঘ) লহর
উত্তর- ‘মাঞ্জস’ শব্দের অর্থ – (ক) ভেলা।

৮। “বেথানিত হৈছে কেশ বেশ।” – ‘বেথানিত’ কথাটির অর্থ – (ক) দৃষ্টিগোচর (খ) বেদনাযুক্ত (গ) ব্যথায় নত (ঘ) অসংবৃত
উত্তর- “বেথানিত হৈছে কেশ বেশ।” – ‘বেথানিত’ কথাটির অর্থ (ঘ) অসংবৃত।

৯। “বাহুরক কন্যার জীবন।” – এক্ষেত্রে ‘কন্যা’ হল – (ক) বিদ্যাধরি (খ) পদ্মা (গ) পদ্মাবতী (ঘ) অপ্সরা
উত্তর- “বাহুরক কন্যার জীবন।” – এক্ষেত্রে ‘কন্যা’ হল (গ) পদ্মাবতী

১০। অচেতন পঞ্চকন্যাকে যা দিয়ে সারিয়ে তোলা হল – (ক) তন্ত্র-মন্ত্র-মহৌষধি (খ) ফল-মূল (গ) কন্দ-শিকড় (ঘ) ভেষজ ঔষধ
উত্তর- অচেতন পঞ্চকন্যাকে (ক) তন্ত্র-মন্ত্র-মহৌষধি দিয়ে সারিয়ে তোলা হল।

১১। ‘সিন্ধুতীরে’ কবিতায় কন্যার শ্বাস পড়ছিল – (ক) অতি দ্রুত (খ) অতি কষ্টে (গ) ধীর লয়ে (ঘ) কোনোটিই নয়
উত্তর- ‘সিন্ধুতীরে’ কবিতায় কন্যার শ্বাস পড়ছিল -(খ) অতি কষ্টে।

১২। চেতনাহীন কন্যাকে দেখে পদ্মার মনে কীসের উদয় হয়েছিল? (ক) দ্বেষ (খ) মমতা (গ) স্নেহ (ঘ) করুণা
উত্তর- চেতনাহীন কন্যাকে দেখে পদ্মার মনে (গ) স্নেহের উদয় হয়েছিল।

১৩। ক-টি দন্ডের মধ্যে পঞ্চকন্যা চেতন পেয়েছিল? (ক) তিন (খ) চার (গ) পাঁচ (ঘ) সাত
উত্তর- (খ) চারটি দন্ডের মধ্যে পঞ্চকন্যা চেতন পেয়েছিল।

১৪। ‘শ্রীযুক্ত মাগন’ হলেন -(ক) ইন্দ্র (খ) পদ্মার পিতা (গ) আলাওলের পৃষ্ঠপোষক (ঘ) মোহন্ত
উত্তর- ‘শ্রীযুক্ত মাগন’ হলেন -(গ) আলাওলের পৃষ্ঠপোষক।

আরো পড়ো → আয়নীয় বন্ধন ও সমযোজী বন্ধন অধ্যায়ের প্রশ্ন – উত্তর

অতি সংক্ষিপ্ত উত্তরধর্মী প্রশ্ন (VSAQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান ১]

১। “কন্যারে ফেলিল যথা” – কন্যাকে কোথায় ফেলা হল ? [মাধ্যমিক ১৮]
উত্তর- সৈয়দ আলাওল রচিত ‘পদ্মাবতী’ কাব্যের থেকে গৃহীত ‘সিন্ধুতীরে’ কাব্যাংশে কন্যা অর্থাৎ রানি পদ্মাবতীকে সমুদ্রের মাঝখানের ‘দিব্যপুরী’ সম একটি দ্বীপে ফেলা হয়েছিল।

২। “সমুদ্রনৃপতি সুতা” – উদ্দিষ্ট ব্যক্তির পরিচয় দাও।
উত্তর- সৈয়দ আলাওলের ‘পদ্মাবতী’ কাব্যে ‘সমুদ্রনৃপতি সুতা’ হলেন সমুদ্ররাজের কন্যা পদ্মা, ইনিই মুহম্মদ জায়সীর ‘পদুমাবৎ’ কাব্যে ছিলেন লক্ষ্মী নামাঙ্কিতা।

৩। “সিন্ধুতীরে দেখি দিব্যস্থান” – দিব্যস্থানটি কেমন ছিল?
উত্তর- ‘দিব্য’ কথার অর্থ উৎকৃষ্ট, মনোহর। ‘সিন্ধুতীরে’ কাব্যাংশের সমুদ্র পরিবেষ্টিত পদ্মার আবাসস্থলটি স্বর্গভূমির মতো মনোহর হওয়ার কারণে একে দিব্যস্থান বলা হয়েছে।

৪। “তথা কন্যা থাকে সর্বক্ষণ।।” ‘তথা’ বলতে কোন স্থানের কথা বলা হয়েছে?
উত্তর- ‘সিন্ধুতীরে’ কাব্যাংশে ‘তথা’ বলতে ফল-ফুল সুশোভিত সুউচ্চ পর্বত পাশ্ববর্তী উদ্যানের মধ্যে অবস্থিত রত্নখচিত উচ্চ টঙ্গি বা রাজপ্রাসাদের কথা বলা হয়েছে।

৫। “সিন্ধুতীরে রহিছে মাঞ্জস।।” -’মাঞ্জস’ শব্দের অর্থ কী? [মাধ্যমিক ২০]
উত্তর- ‘সিন্ধুতীরে’ কাব্যাংশের ‘মাঞ্জস’ শব্দের অর্থ ‘নৌকা বা ‘ভেলা’ বা ‘মান্দাস’।

৬। “সিন্ধুতীরে রহিছে মাঞ্জস” – কে এই মাঞ্জস দেখেছিলেন?
উত্তর- সৈয়দ আলাওলের “পদ্মাবতী’ কাব্যের ‘পদ্মা- সমুদ্র খণ্ড’ অংশের অন্তর্গত ‘সিন্ধুতীরে’ কবিতায় সমুদ্রকন্যা পদ্মা এই মাঞ্জস দেখেছিলেন।

৭। “মনেতে কৌতুক বাসি” – এই কৌতুকের কারণ কী?
উত্তর- সৈয়দ আলাওলের ‘সিন্ধুতীরে’ কবিতায় সমুদ্রকন্যা পদ্মা সকালবেলায় সখীসহ সিন্ধু-তীরবর্তী দ্বীপটির মনোহর উদ্যানে পরিভ্রমণকালে জনশূন্য বেলাভূমিতে একটি মাঞ্জস দেখতে পেয়ে কৌতুহলী হয়ে উঠেছিলেন।

৮। “বিস্মিত হইল বালা” – কে, কেন বিস্মিত হয়ে পড়েন?
উত্তর- সমুদ্রকন্যা পদ্মা সমুদ্রতীরে অচেতন পদ্মাবতীর রূপ দেখে বিস্মিত হয়েছিলেন।

৯। “দেখিয়া রূপের কলা/ বিস্মিত হইল বালা/ অনুমান করে নিজ চিতে।”- ‘বালা’ কী অনুমান করেছিল? [মাধ্যমিক ১৭]
উত্তর- ‘সিন্ধুতীরে’ কবিতার সংজ্ঞাহীন অপরূপা পদ্মাবতীকে দেখে সমুদ্রসুতা পদ্মা অনুমান করলেন, ইন্দ্রের শাপগ্রস্ত স্বর্গের অপ্সরা বিদ্যাধরি স্বর্গভ্রষ্ট হয়ে অচেতন অবস্থায় সিন্ধুতীরে পড়ে আছেন।

১০। “বেথানিত হৈছে কেশ বেশ।” – ‘বেথানিত’ শব্দের অর্থ কী?
উত্তর- ‘বেথানিত’ শব্দের অর্থ অসংবৃত বা আলুথালু।

১১। “চিত্রের পোতলি সমা” – এমন বলার কারণ কী?
উত্তর- আলাওলের ‘সিন্ধুতীরে’ কবিতায় পদ্মাবতীর রূপলাবণ্যে মোহিত সমুদ্রকন্যা পদ্মা পদ্মাবতীর সৌন্দর্য যে চিত্রের পুতুলের মতো তা বোঝাতেই ‘চিত্রের পোতলি সমা’ বাক্যাংশের অবতারণা করেছেন।

১২। “বিধি মোরে না কর নৈরাশ।।” -উক্তিটি কার?
উত্তর- আলওলের ‘সিন্ধুতীরে’ কবিতায় সমুদ্রকন্যা পদ্মা উক্তিটি করেছেন। অর্থাৎ তিনিই নিরাশ হতে চান না।

১৩। “সখী সবে আজ্ঞা দিল” – বক্তা তার সখীদের কী আড্ডা দিয়েছিলেন? [মাধ্যমিক ১৯]
উত্তর- আলাওলের ‘সিন্ধুতীরে’ কবিতায় সখীদের সঙ্গে প্রাতর্ভ্রমণ তথা উদ্যান পরিভ্রমণকালে নির্জন সমুদ্রতটে সংজ্ঞাহীন পঞ্চকন্যাকে দেখে পদ্মা তাঁর সখীদের সেই পঞ্চকন্যাকে বসনে ঢেকে উদ্যানে এনে চিকিৎসার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

১৪। “পঞ্চকন্যা পাইলা চেতন।” – পঞ্চকন্যা কীভাবে চেতনা ফিরে গেল? [WBBSE Sample]
উত্তর- আলাওলের ‘সিন্ধুতীরে’ কবিতায় সমুদ্রকন্যা পদ্মা ও তাঁর সখীদের পরম সেবায় আগুনের সেঁক, তন্ত্রমন্ত্র – মহৌষধ সহযোগে চারদণ্ডব্যাপী চিকিৎসায় পঞ্চকন্যা অর্থাৎ পদ্মাবতী ও তাঁর সখীগণ চেতনা ফিরে পেল।


২০২৩ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ আপডেট

 Buy Now – মাধ্যমিক ২০২৩ চ্যাপ্টার টেস্ট ই-বুক সিরিজ 

ব্যাখ্যাভিত্তিক সংক্ষিপ্ত উত্তর ভিত্তিক প্রশ্ন (SAQ)

[প্রতিটি প্রশ্নের প্রশ্নমান ৩]

১। “কন্যারে ফেলিল যথা” -কন্যাটি কে? তাকে কোথায় ফেলা হয়েছিল? [১+২]
উত্তর – সৈয়দ আলাওল রচিত ‘সিন্ধুতীরে’ পদ্যে, ‘কন্যা’ বলতে চিতোরের রানা রত্নসেনের স্ত্রী পদ্মাবতীর কথা বলা হয়েছে।

রাজপুত রাজা রত্নসেন তাঁর পত্নী সিংহল (শ্রীলঙ্কা) রাজকন্যা পদ্মাবতীকে বিবাহ করে জলপথে নিজ দেশে ফিরে আসার পথে প্রাকৃতিক দুর্যোগের সম্মুখীন হন। তাদের নৌকা ভেঙে যায় এবং রত্নসেন একটি মন্দাসে বা ভেলায় পদ্মাবতী ও তার চার সখীকে তুলে দেন। এর পর সেই ভেলা স্রোতের টানে একটি সমুদ্রবেষ্টিত, দিব্যভুমিতে উপস্থিত হয়। ঐ স্বর্গতুল্য দ্বীপটি ছিল সমুদ্রকন্যা পদ্মার আবাসস্থল। পদ্যে এই স্থানের কথাই বলা হয়েছে।

২। “দিব্য পুরী সমুদ্র মাঝার” – কোন পুরীকে ‘দিব্য পুরী’ বলা হয়েছে? ‘দিব্য পুরী’ বলার কারণ কী? [১+২]
উত্তর – সৈয়দ আলাওল রচিত ‘সিন্ধুতীরে’ পদ্য অনুযায়ী সমুদ্ররাজ কন্যার আবাস স মুদ্রমাঝের দ্বীপের কথা বলা হয়েছে।

‘দিব্য’ শব্দের অর্থ ঐশ্বরিক এবং ‘পুরী’ শব্দের অর্থ নগরী। কবি এই শব্দবন্ধটি দিব্যস্থান বোঝাতে ব্যবহার করেছেন। কবির বর্ণনায় আমরা পাই যে সমুদ্রঘেরা দ্বীপটি পর্বত দ্বারা ঘেরা এবং সেখানের উদ্যানে ফল এবং ফুলের প্রাচুর্য লক্ষ্যনীয়। সেই নগরী বড়ই মনোরম, সেখানে কোনো দুঃখ ও কষ্ট নেই, সেখানে সর্বদাই সত্য ধর্ম পালিত হয়। ঐ নগরীতেই রয়েছে একটি ‘বিচিত্র টঙ্গি’ বা প্রাসাদ যা সোনা এবং রত্ন দ্বারা শোভিত হয়। তাই কবি এই স্বর্গসম স্থানটিকে দিব্যপুরী বলেছেন।

৩। “অতি মনোহর দেশ” – এই ‘মনোহর দেশ’ এর সৌন্দর্যের পরিচয় দাও। [মাধ্যমিক ১৯]
উত্তর – সৈয়দ আলাওল রচিত ‘সিন্ধুতীরে’ কাব্যাংশে আমরা একটি সমুদ্র ঘেরা ‘দিব্যপুরীর’ বর্ণনা পাই, যাকে কবি ‘অতি মনোহর দেশ’ বলে চিহ্নিত করেছেন। কবি তাঁর বর্ণনায় বলেছেন, এই অতি সুন্দর দেশটিতে কোন দুঃখ, কষ্ট নেই। ঐ দেশে কেবলমাত্র সদাচারি মানুষ বাস করেন। দেশটি সুউচ্চ পর্বতে ঘেরা, সেখানে ফুল ও ফলের আধিক্য লক্ষ্যনীয়। তাতে আছে এক উদ্যান, যাতে শোভা পায় নানা ধরণের সুগন্ধি ফুল ও ফলন্ত বৃক্ষ। ঐ দিব্য নগরীতেই রয়েছে এক প্রসাদ, যা সোনা ও রত্নে পরিপূর্ণ।


মাধ্যমিক পরীক্ষার ভীতি কাটাবার সেরা উপায় ↓


৪। “তথা কন্যা থাকে সর্বক্ষণ।।” মন্তব্যটির প্রসঙ্গ নির্দেশ করো। কন্যাটি কে? কোথায় সে সর্বক্ষণ থাকে? [১+১+১]
উত্তর – আলচ্য মন্তব্যটি সৈয়দ আলাওল রচিত ‘সিন্ধুতীরে’ কাব্যাংশের অন্তর্গত। কাব্যাংশের ঘটনাক্রমে আমরা জানতে পারি যে, চিতোররাজ রত্নসেন সিংহলকন্যা পদ্মাবতীকে বিবাহের পর তার নিজ আবাসে ফিরে যাবার সময় ভয়ংকর দুর্যোগের সম্মুখীন হন। তাদের নৌকাডুবি হয় এবং রানী পদ্মাবতি ও তাঁর চার সখী একটি ভেলায় আশ্রয় নিয়ে সমুদ্রের টানে একটি স্বর্গতুল্য দ্বীপ নগরীতে এসে পৌঁছান। ঐ দ্বীপে পদ্মা বাস করতেন। মন্তব্যটি এই প্রসঙ্গে ব্যবহার হয়েছে।

এখানে ‘কন্যা’ বোঝাতে সমুদ্র কন্যা পদ্মার কথা বলা হয়েছে।

দিব্য নগরীতে, সোনা ও রত্নখচিত প্রাসাদে পদ্মা বাস করতেন।

৫। “অনুমান করে নিজ চিতে।” – কে, কী অনুমান করেন? [১+২]
উত্তর – আলোচ্য মন্তব্যটি সৈয়দ আলাওল রচিত ‘সিন্ধুতীরে’ কাব্যাংশের অন্তর্গত। এখানে সমুদ্র কন্যা পদ্মার অনুমানের কথা বলা হয়েছে।

সমুদ্র দুর্যোগের সম্মুখীন হয়ে নৌকাডুবির পর একটি ভেলায় আশ্রয় নিয়ে রানী পদ্মাবতী ও তাঁর চার সখী অচৈতন্য অবস্থায় সমুদ্রকন্যা পদ্মার আবাসদ্বীপে এসে পৌঁছান। ঐ প্রত্যুষে সমুদ্রকন্যা পদ্মা সখীসহ ভ্রমণ করার সময়ে ঐ ভেলা এবং অচেতন পাঁচ মহিলাকে দেখতে পান। তাদের মধ্যে পদ্মাবতী ছিলেন অপরূপ সুন্দরী। পদ্মা, অচেতন পদ্মাবতীর আশ্চর্য রূপদেখে অনুমান করেন যে, উনি নিশ্চয় কোনো স্বর্গের অপ্সরা, যিনি ইন্দ্রের সাপে স্বর্গচ্যুত হয়ে পৃথিবীতে এসেছেন। আলোচ্য মন্তব্যে এই অনুমানের কথাই বলা হয়েছে।

৬। “বিধি মোরে না কর নৈরাশ।।” – কার প্রার্থনা? এমন প্রার্থনার কারণ কী? [১+২]
উত্তর – আলোচ্য অংশটি সৈয়দ আলাওল রচিত ‘সিন্ধুতীরে’ কাব্যাংশের অন্তর্গত। এখানে সমুদ্রকন্যা পদ্মার প্রার্থনার কথা বলা হয়েছে।

সমুদ্র দুর্যোগের সম্মুখীন হয়ে নৌকাডুবির পর একটি ভেলায় আশ্রয় নিয়ে রানী পদ্মাবতী ও তাঁর চার সখী অচৈতন্য অবস্থায় সমুদ্রকন্যা পদ্মার আবাসদ্বীপে এসে পৌঁছান। ঐ প্রত্যুষে সমুদ্রকন্যা পদ্মা সখীসহ ভ্রমণ করার সময়ে ঐ ভেলা এবং অচেতন পাঁচ মহিলাকে দেখতে পান। তারা দেখেন যে পদ্মকন্যার শারীরিক অবস্থা ভালো নয়, সমুদ্রযুদ্ধে তারা শ্রান্ত এবং নামমাত্র শ্বাস – প্রশ্বাস চলছে। স্নেহশীল পদ্মা ঐ প্নচকন্যার সুস্থতা কামনা করে ‘বিধি’ অর্থাৎ ঈশ্বরের কাছে তারদের দ্রুত আরগ্য কামনা করেন।

আরো পড়ো → বংশগতি অধ্যায়ের প্রশ্ন উত্তর আলোচনা

WBPorashona.com-এর পোস্ট আপডেট নিয়মিত পাবার জন্য –


আমাদের কাজ থেকে উপকৃত হলে এই লেখাটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করার অনুরোধ রইল।

WBP-YT-Banner